Herbal Trees – Cure of native plants and fruits

হাতিশুঁড় গাছের উপকারিতা | Benefits of Elephant trunk in Bengali

হাতিশুঁড় গাছের উপকারিতা

স্থল প্রাণীদের মধ্যে সবথেকে বড় প্রাণী হল হাতি, আর এই হাতির এমন সুক্রিয় গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হল সুর সেই নাম অনুসারে একটি গাছের নামকরণ করা হয়েছে।

হাতিশুঁড় গাছের উপকারিতা

হাতিশুঁড় বহুবর্ষজীবী ও গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ। লম্বায় ১-২ ফুট পর্যন্ত হয়ে থাকে। এর কান্ড ফাঁপা ও নরম হয়। এটির পাতাগুলি দেখতে ডিম্বাকৃতির মতো। তবে আগার দিকটা সরু হয়। পুষ্প দন্ত অনেকটা হাতির শুঁড়ের মতো হয়। যার জন্য বাংলায় এর নামকরণ করা হয়েছে হাতিশুঁড়। এই হাতিশুর গাছের বৈজ্ঞানিক নাম হল হেলিট্রোপিয়াম ইন্দিকাম

এর আদি নিবাস এশিয়া মহাদেশে। ফুলের রং হয় সাদা। তবে হালকা বেগুনি রঙ হতে পারে।সারা বছরই ফুল ফোটে, তবে বর্ষা কলে বেশি ফোটে।হাটিসুর ভাঙ্গা জমিতে এবং জঙ্গলের ধারে বেশি জন্মায়।

তাহলে এই হতিসুর কি কি কাজে লাগে তা জেনে নেওয়া যাক।

ব্রণের চিকিৎসায়

বয়স সন্ধি কালে অনেকের গেলে ব্রণ দেখা যায়।এই ব্রণের কারণে মুখের সৌন্দর্য্য অনেক খানি ম্লান হয়ে যায়। এক্ষেত্রে, হাতিসুরের পাতা ও কচি ডাল থেঁতো করে ব্রণের ওপর প্রলেপ দিলে ব্রণ সেরে যাবে।

বিষাক্ত পোকার কামড়ে

বিষাক্ত পোকা কামড় দিলে বা হুল ফোটালে সেই স্থানে যন্ত্রণা অনুভব হয় এবং ফুলে ওঠে। এই অবস্থায় ৫ গ্রাম পাতার রস এবং সমপরিমাণ কাষ্ট্রল ওয়েল মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে লাগালে যন্ত্রণার আরাম পাওয়া যায়।

ক্ষত ও ফোঁড়ায়

শরীরের কোথাও ক্ষত ও ফোঁড়া হলে এবং ফোঁড়া ফেটে ঘা হলে,হাটিশুর গাছের পাতা ও কচি ডাল থেঁতো করে সেই রস ব্যাবহার করলে দ্রুত ঘা শুকিয়ে যাবে।

চোখ উঠায়

হাতিসুড় গাছের পাতা ও কচি ডালের রস দিনে ২-৩ বার ব্যাবহার করলে দুয়েকদিনের মধ্যেই এই সমস্যা দূর হয়ে যাবে। এটি চোখ ওঠার একটি মূল্যবান ওষুধ।

Disclaimer: উপরোক্ত রোগের বিষয় যে সমস্ত ভেষজ উদ্ভিদের দ্বারা রোগ নিরাময়ের বিষয় বলা হল সেগুলি ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই কোন  বা আয়ুর্বেদিক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করবেন। রোগ নিরাময় পদ্ধতি গুলি যদি আপনি ব্যবহার করতে চান সেটি সম্পূর্ণ আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার, এর জন্য herbaltrees.in ওয়েবসাইট কোন ভাবেই দায়ী থাকবে না।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *